• India India
  • Date 20th May, 2022

24x7 Online News Portal in Bengali| News Hut

Copy By anandabazar patrika

বড় খবর: এবার বাধর্ক্য রোখার টিকা?

বড় খবর:  এবার বাধর্ক্য রোখার টিকা?

By Arunabha Pradhan - 17th December, 2021

www.webhub.academy

ভানু বন্দ্যোপাধ্যায় অভিনীত ‘আশিতে আসিও না’ ছবির কাহিনি মনে পড়ে যেতে পারে। বার্ধক্য রুখতে মানুষের আকুলতা ছিল ১৯৬৭ সালের সেই ছবির উপজীব্য। কিন্তু প্রাণীজগতের অমোঘ সত্য যে জরা, সে কথা কিন্তু সেই কল্পকাহিনিও স্বীকার করেছিল।

কিন্তু অনিবার্য বার্ধক্যকে কি এ বার রুখে দেওয়া সম্ভব হবে, টিকার জাদুমন্ত্রে? বয়সে আর জবুথবু হয়ে পড়তে হবে না? হয়ে পড়তে হবে না জরাগ্রস্ত? সারানো যাবে বয়সজনিত নানা ধরনের জটিল রোগ, শুধুই টিকার কেরামতিতে?

ইঁদুরের উপর একটি টিকার সফল পরীক্ষা সেই সম্ভাবনারই দরজা খুলে দিল। বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, ‘‘মানুষের উপর সফল হলে এই টিকা একটি নতুন দিগন্ত খুলে দেবে। যার জন্য মানুষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সভ্যতা আধুনিক হয়ে ওঠার আগে থেকেই।’’

আমেরিকার ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব এজিং (এনআইএ)’-এর বিজ্ঞানীদের ইঁদুরের উপর চালানো পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান গবেষণা পত্রিকা ‘নেচার এজিং’-এ। গত ১০ ডিসেম্বর। গবেষণাপত্রটি জানিয়েছে, পরীক্ষায় সফল টিকাটি ইঁদুরের শরীর থেকে বুড়োটে, অথর্ব হয়ে পড়া কোষগুলিকে সরিয়ে দিতে পেরেছে। তার ফলে, ইঁদুরের আয়ু বেড়েছে। তাদের বার্ধক্যজনিত অনেক রোগ পুরোপুরি সেরেও গিয়েছে।

মিনেসোটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অন দ্য বায়োলজি অব এজিং অ্যান্ড মেটাবলিজমের সহকারী অধিকর্তা অধ্যাপক পল রবিন্স বলেছেন, ‘‘অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য গবেষণা। গবেষকরা যে পথ ধরে এগিয়েছেন তাতে তাত্ত্বিক ভাবে এই টিকার পরীক্ষা মানুষের উপরেও সফল হওয়া উচিত। তবে মানুষের আগে আরও কয়েকটি মনুষ্যেতর স্তন্যপায়ীর উপর এই পরীক্ষা চালিয়ে দেখা উচিত।’’


টিকার লক্ষ্য দেহের কোন কোষগুলি, কেন?

এনআইএ জানিয়েছে, সেনেসেন্ট কোষ। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অত্যধিক চাপে বা অন্য কোনও ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ফলে এই কোষগুলির স্থিতিস্থাপকতা (‘ইলাস্টিসিটি’) পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যায়। তখন কোষগুলির আর বিভাজন হয় না। কিন্তু তারা মরেও যায় না। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই সেনসেন্ট কোষের সংখ্যা বাড়তে থাকে। দেহে জমতে থাকে দ্রুত। এই কোষগুলির ‘পাহাড়’ সরানো তখন অসম্ভব হয়ে পড়ে দেহের স্বাভাবিক প্রতিরোধ ব্যবস্থার কোষগুলির পক্ষে।

জমতে জমতে শুধুই যে পাহাড় হয়ে ওঠে তা-ই নয়। এই সেনেসেন্ট কোষগুলি থেকে এক ধরনের যৌগের ক্ষরণ হয়। যা নানা ধরনের প্রদাহ (‘ইনফ্ল্যামেশন’) সৃষ্টি করে। তার ফলে, সেনেসেন্ট কোষগুলির আশপাশে থাকা সুস্থ সবল কোষগুলির প্রচুর ক্ষতি হয়। এর আগে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে, শরীরে এই সেনেসেন্ট কোষগুলির বাড়-বৃদ্ধির জন্যই ক্যানসার, অ্যালঝাইমার্স এবং স্ক্লেরোসিসের মতো বার্ধক্যজনিত নানা জটিল রোগের সূত্রপাত হয়। ধমনীতে রক্ত চলাচল থমকে যায় সামনে বাধার দেওয়াল (‘আর্টারি প্লেক্‌স’) তৈরি হয়ে যাওয়ায়। এগুলি সারানো আর সম্ভব হয় না।

সেনেসেন্ট কোষগুলিকে সরানোর জন্য নানা ধরনের ওষুধ আবিষ্কারের চেষ্টা গত এক দশক ধরেই চলছে। তাদের কোনও কোনওটি এখন হিউম্যান ট্রায়ালে রয়েছে। রবিন্স বলেছেন, ‘‘তবে ওই সব ওষুধের চেয়ে টিকার কার্যকারিতা অনেক বেশি হবে বলেই আশা করছি। কারণ, ওষুধ তো ব্যবহৃত হবে দেহে সেনেসেন্ট কোষ জমতে জমতে পাহাড়ে পরিণত হওয়ার পর। তখন অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। দেহের সুস্থ কোষগুলির ততক্ষণে অনেকটাই ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। আরও দুর্বল হয়ে পড়েছে প্রতিরোধ ব্যবস্থার কোষগুলিও। কিন্তু ৫০ বছর বয়স হলেই যদি এই টিকা দেওয়া সম্ভব হয়, তা হলে শরীরে এই সেনেসেন্ট কোষ গড়েই উঠতে পারবে না। জমতে জমতে পাহাড় হয়ে ওঠা তো অনেক দূরের কথা। টিকা দিয়ে প্রতিরোধ ব্যবস্থার কোষগুলিকে এমন ভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া যাবে যাতে সেনেসেন্ট কোষ তৈরি হচ্ছে দেখলেই তারা তাদের নিকেশ করে দিতে পারে।’’

কিন্তু সমস্যাটা অন্যত্র। এই সেনেসেন্ট কোষগুলি দেহের সর্বত্রই তৈরি হয়। এক জায়গার সেনেসেন্ট কোষের সঙ্গে দেহের অন্য জায়গার সেনেসেন্ট কোষের আচার-আচরণে মিলও থাকে না। গবেষকরা একটি বিশেষ ধরনের সেনেসেন্ট কোষের উপর নজর রেখেছিলেন। যেগুলি তৈরি হয় ধমনী, শিরা ও রক্তজালিকার একেবারে ভিতরের দিকে থাকা এন্ডোথেলিয়াল কোষগুলিতে। এগুলিকে বলা হয়— সেনেসেন্ট ভাসক্যুলার এন্ডোথেলিয়াল কোষ।


গবেষকরা কী খুঁজেছিলেন? কেন?

তার পর তাঁরা খুঁজে বার করেন সেই কোষগুলির উপরের স্তরে কোন প্রোটিনটিকে বেশি পরিমাণে দেখা যাচ্ছে। কারণ, গবেষকরা চেয়েছিলেন সেই প্রোটিনটিকেই তাঁদের বানানো টিকার লক্ষ্যবস্তু করতে। গবেষকরা তেমন একটি প্রোটিন খুঁজে পান। যার নাম— ‘গ্লাইকোপ্রোটিন ননমেটাস্ট্যাটিক মেলানোমা প্রোটিন বি ’ (জিপিএনএমবি)। বার্ধক্যজনিত বেশ কয়েকটি জটিল রোগ, মেলানোমা-সহ কয়েক ধরনের ক্যানসারের ক্ষেত্রে এই প্রোটিনটিকে বেশি পরিমাণে সেনেসেন্ট কোষে জমতে দেখা যায়।

মানব দেহকোষ নিয়ে পরীক্ষা চালিয়েও গবেষকরা দেখেছেন, এই প্রোটিনটি স্ক্লেরোসিস রোগীদের সেনেসেন্ট কোষে অনেক বেশি পরিমাণে দেখা যায়। এই প্রোটিনের পরিমাণ বৃদ্ধির জন্যই বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ধমনীতে রক্ত সংবহন বাধাপ্রাপ্ত হয়।

পরীক্ষাটি চালানো হয় মধ্যবয়সি ইঁদুরের উপর, যাতে তাদের বার্ধক্য ও বার্ধক্যজনিত রোগের গতিতে লাগাম পরানো সম্ভব হচ্ছে কি না বোঝা যায়। দেখা গিয়েছে, টিকা ৯৫ শতাংশ সফল হয়েছে ইঁদুরের ক্ষেত্রে।

Photo- vitafoodsinsights

আরো পড়ুন

পর্নোগ্রাফি দেখেই প্রতি ঘণ্টায় আয় দেড় হাজার টাকা

By Priyanka Sarkar - 19th May, 2022

পদ মাত্র একটি। চাকরির জন্য আবেদন জমা পড়েছে ৯০ হাজার। আরো পড়ুন

জানুন কোন বয়সে শারীরিক সম্পর্ক কতটা উপভোগ্য হবে

By Bitan Ghosh - 17th May, 2022

যৌনতৃপ্তি কি শুধু নির্ভর করে প্রিয়জনের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হলে? আরো পড়ুন

ট্রেনের পিছনে কেন এমন ‘ক্রস’ চিহ্ন থাকে!

By Bijan Mukherjee - 12th May, 2022

দূরপাল্লার ট্রেনের পিছনে একটি ‘ক্রস’ চিহ্ন দেখা যায় সব সময়। আরো পড়ুন

একাধিক যৌনসঙ্গী থাকলে স্বাস্থ্যের পক্ষে লাভজনক

By Arunabha Pradhan - 2nd May, 2022

সম্পর্কের ভিত মজবুত করতে সুস্থ শারীরিক সম্পর্ক প্রয়োজন। আরো পড়ুন

কী খেলে এই গরমে সুস্থ থাকবেন

By Arunabha Pradhan - 30th April, 2022

কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে ক্রমশ বাড়ছে তাপমাত্রা। আরো পড়ুন

এই ৫ নিরামিষ খাবার খেলে আপনার শরীরে ভিটামিন বি১২-এর ঘাটতি কোনওদিনও হবে না

By Bitan Ghosh - 29th April, 2022

ভিটামিন বি১২ দেহের জন্য অপরিহার্য উপাদানগুলির মধ্যে অন্যতম। আরো পড়ুন

হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি বাড়লে এটাও বৃদ্ধি পায়, জানুন কি…

By Jeet Ghosh - 27th April, 2022

স্মৃতিশক্তি হ্রাস বা লোপ পাওয়ার মতো সমস্যাকে বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় ডিমেনশিয়া। আরো পড়ুন

দৈনিক এত পরিমাণ মদ খেলে আপনার কোনও ক্ষতি হবে না…

By Sneha Chatterjee - 20th April, 2022

লিভার রক্তে অবস্থিত অ্যালকোহল দূর করে। আরো পড়ুন

মহিলাদের কেন হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি বাড়ছে?

By Bitan Ghosh - 18th April, 2022

বিভিন্ন সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, প্রতি বছর পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি মানুষ প্রাণ হারান হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে। আরো পড়ুন

News Hut
www.webhub.academy